ব্লগে স্পীড বাড়ানোর জন্য মেনে চলতে হবে যে বিষয়গুলো

 ব্লগ বা ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড বাড়ানোর উপায়:- আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করব কিভাবে ব্লগ সাইটের লোডিং স্পীড বাড়াবেন। আজকের আর্টিকেলটি যে সকল বন্ধুরা পড়তে এসেছেন আমি মনে করি আপনাদের সবারই একটি ব্লগ সাইট রয়েছে। এখন আপনি যদি আপনার ব্লগ সাইটের স্পীড নিয়ে চিন্তিত থাকেন তাহলে আজকের আর্টিকেটি আপনার জন্য।

তাই ধৈর্য্য সহকারে আজকের আর্টিকেলটি সম্পুর্ন পডতে থাকেন। এবং জেনেনিন আপনার ব্লগের স্পিড কিভাবে বাড়াবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারিত। প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক একটি ব্লগে স্পীড বাড়ানো কেন প্রয়োজন?

এসইও এর ক্ষেত্রে ব্লগ স্পীডের এর প্রয়োজনীয়তা?

Google সম্প্রীতি 2021 এর একটি আপডেটে ঘোষণা দিয়েছে যে একটি ব্লগ মূল ওয়েব ভাইটাল গুলোকে র‍্যাঙ্কিং  ফ্যাক্টর হিসেবে বিবেচনা করা হবে অর্থাৎ একটি ব্লগের স্পিড তার র‍্যাঙ্কিং ফ্যাক্টর হিসেবে কাজ করবে। তাই আমরা যে সকল ব্লগাররা আছি তাদের প্রত্যেকের ওয়েবসাইটের পেইজ স্পীড অবশ্যই ভালো করতে হবে। পেইজ স্পীড বেশি থাকলে খুব সহজেই গুগলের প্রথম পাতায় আপনার সাইট গুলো র‍্যাঙ্ক করবে।

ব্লগ সাইট এর স্পিড কিভাবে চেক করবেন?

আপনার ওয়েবসাইট হোক ব্লগারে বা ওয়ার্ডপ্রেসে আপনি শুধুমাত্র আপনার ওয়েবসাইটের ইউ আর এল এর মাধ্যমে আপনার সাইটের স্পীড পরিমাপ করতে পারবেন। কোন ওয়েবসাইটের স্পিড চেক করার জন্য গুগোল আগে থেকেই একটি পেজই স্পীড ইন্সাইট নামে টুলস বানিয়ে রেখেছে।

আপনার ব্লগের স্পিড চেক করার জন্য প্রথমেই চলে যাবেন Page Speed Inside . এখানে আপনার ওয়েবসাইটের ইউ আর এল টি দিয়ে Analyze নামক একটি বাটন দেখতে পারবেন। বাটনটিতে ক্লিক করার অল্প কিছুক্ষণের ভেতরে আপনার ওয়েবসাইটের স্পীড দেখতে পারবেন।

ঠিক নিচের স্ক্রীনশটএর মত একটি রেজাল্ট দেখতে পারবেন

ব্লগ বা ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড বাড়ানোর উপায়

আপনি যদি উপরের এই স্ক্রিনশটটি খেয়াল করে থাকেন তাহলে দেখতে পারবেন সেখানে Core Web Vitals Assessment: Passed এর মানে আমার এই ওয়েবসাইটটি গুগল পেইজ স্পীডের যে রিকোয়ারমেন্ট দিয়েছে সেটি পাস করেছে।

এখন আসি আপনার ওয়েবসাইটের স্পীড কিভাবে বাড়াবেন।আপনার ওয়েবসাইটের স্পীড বাড়ানোর জন্য নিচের স্টেপগুলো ধাপে ধাপে ফলো করতে থাকেন। 

ব্লগার সাইটে স্পীড বাড়ানোর জন্য করণীয় 

ব্লগে স্পীড বাড়ানোর জন্য হোস্টিং বা সার্ভার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যারা ব্লগারের ব্লগস্পটে সাইট তৈরি করেছেন তাদের হোস্টিং বা সার্ভার হচ্ছে গুগুলের। তো এখানে হোস্টিং ও সার্ভার এর কোন প্রকার এক্সেস আপনি পাচ্ছেন না। যার ফলে CMS- রুট ফাইল গুলো এডিট করতে পারবেন না।তবে নিচের নিয়ম গুলো অনুসরণ করে আপনার ব্লগার ব্লগস্পটের সাইট গুলোর স্পীড বাড়াতে পারবেন।

১.ইমেজ বা টেক্সট ফরম্যাট কম্প্রেস করা।

ব্লগ পোস্টে সকল প্রকার ইমেজ অথবা মিডিয়া ফাইল গুলো কম্প্রেস মোডে ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। আপনার ব্লগ পোস্টে যত ইমেজ ব্যবহার করবেন সবগুলো কম্প্রেস বা নেক্সট জেন ফরম্যাট ব্যবহার করা।

 অর্থাৎ Png এবং jpeg ফরম্যাটকে webp ফরম্যাটে ব্যবহার করবেন।অনলাইনে অনেক টুলস পাবেন যেটা দিয়ে আপনি খুব সহজেই png and jpeg To webp করতে পারবেন।

২.ফাস্ট লোডিং থিম ব্যবহার করা 

ব্লগার ওয়েবসাইটের ক্ষেএে স্পিড বাড়ানো জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন থিম।তাই কোনো থিম আপনার ব্লগে ইনস্টল দেওয়ার আগে সেই থিমের স্পিড চেক করে নিবেন।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা প্রিমিয়াম থিম গুলোর ক্র্যাক ভার্সন বেশি ব্যবহার করে থাকে। এর ফলে ওয়েবসাইটের স্পিড এবং ওয়েবসাইট হারানোর সম্ভাবনা থাকে। আবার অনেক সময় ক্রাক থিম গুলোতে স্কিমা মার্কআপ সঠিকভাবে যুক্ত করা থাকে না। যার ফলে আপনার ব্লগের পোস্ট গুলো গুগলে রেংক করতে চায়না।

যে সকল ব্লগার বন্ধুরা প্রিমিয়াম থিম কিনতে পারেন না। তারা ক্রাক ক্রিম ব্যবহার না করে ফ্রি থিম ব্যবহার করার পরামর্শ দেওয়া হলো। এতে আপনার সাইট থাকবে সুরক্ষিত এবং খুব সহজেই আপনার ব্লগের পোস্ট গুলো গুগলে রেংকিং পাবে।

৩.অব্যবহৃত জাভাস্ক্রিপ্ট এবং উইজেট অপসারণ করা

আপনার ব্লগে অব্যবহৃত জাভাস্ক্রিপ্ট বা উইজেট আছে কিনা চেক করে নিবেন এবং সেগুলো অপসারণ করে নিবেন।এতে আপনার সাইটের স্পিড বৃদ্ধি পাবে।

আবার অনেকেই আছেন যারা তাদের ব্লগে সৌন্দর্য বাড়ানোর জন্য বেশি পরিমাণে উইজেট ব্যবহার করে থাকে। এর ফলে ব্লগের লোডিং স্পীড কমে যায়। তাই আমাদের ব্লগ সাইটটি ডিজাইন করার ক্ষেত্রে অবশ্যই নজর রাখতে হবে। যেন অতিরিক্ত উইজেট ব্যবহার করা না হয় এবং অব্যবহৃত কোন জাভাস্ক্রিপ্ট না থাকে।

বর্তমানে অনেক ব্লগে দেখা যায় তাদের ফেসবুক পেইজ একটি উইজেট এ এম্বেড করে ব্যবহার করে থাকে। এর ফলে ব্লগের স্পিড অনেকটাই কমে যায়। তো ব্লগে স্পিড অপটিমাইজ করার জন্য ফেসবুক পেইজ উইজেট ব্যবহার করা পরিহার করার চেষ্টা করবেন।

৪. বেশি ফন্ট ব্যবহার না করা।

আমাদের মধ্যে অনেক ব্লগার আছে যারা তাদের ব্লগসাইটটি সাজাতে ভালোবাসে। যার কারণে বিভিন্ন ব্লগে বিভিন্ন ফন্ট ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু একটি ব্লগে একাধিক ফন্ট ব্যবহার করার কারণে ব্লগের স্পিড অনেক কমে যায়।

ব্লগ সাইটে স্পিড বাড়ানোর জন্য ফন্ট অবশ্যই অপটিমাইজ করতে হবে। অর্থাৎ আপনার ব্লগে একাধিক ফন্ট ব্যবহার না করে যেকোনো একটি ফন্ট ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। এতে আপনার ব্লগের লোডিং স্পীড অনেক বেড়ে যাবে।

৫. লেজি লোডিং এডসেন্স এড ব্যবহার করা

বর্তমানে আমাদের ব্লগ সাইট গুলোর স্পিড কমাও আরো একটি অন্যতম কারণ হলো এডসেন্সের এড ব্যবহার করা। অনেকেই আছেন যারা তাদের ব্লগগুলোতে অতিরিক্ত মাত্রায় এডসেন্সের এড ব্যবহার করে থাকে যার ফলস্বরূপ ওয়েবসাইটের গতি একদম কমে যায়।

ওয়েবসাইটের স্পিড বাড়ানোর জন্য এডসেন্সের এড গুলো অবশ্যই প্রয়োজন মত ব্যবহার করবেন। আর অবশ্যই এডসেন্সের এড গুলো লেজি লোডিং এডসেন্স ব্যবহার করবেন এতে করে আপনার ব্লগের স্পিড এডসেন্স থাকা শর্তেও কোন প্রকার কমবে না।

আশা করি আজকের আর্টিকেল পড়ে  ব্লগ বা ওয়েবসাইটের লোডিং স্পীড বাড়ানোর বিষয়টি ভালোভাবে বুঝতে পারছেন।ব্লগ অথবা ওয়েব স্পীড সম্পর্কে কোনো মন্তব্য থাকলে অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন। 

ধন্যবাদ….!

Visited 1 times, 1 visit(s) today